দেশের সমসাময়িক বিষয় তথা ভাল মন্দ সব বিষয় নিয়েই কথা বলার অধিকার সাধারন জনগনের আছে।আলচনা সমালচনা সব কাজেই বিদ্যমান থাকে আলোচনা সমালচনার মাধ্যমেই যে কোন কাজের মান ভাল হয়।তবে দেশের কোন সমসাময়িক বিষয় নিয়ে মত দ্বিমত পেষন করা অবশ্যই যৌক্তিক।তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে এই বিষয়টি খুবই ভাবিয়ে তুলেছে সাধারন মানুষকে।



জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পাওয়া বেতনভুক্ত প্রজাতন্ত্রের সামান্যতম কর্মচারী হিসেবে যেদিন পুলিশের চাকরীতে ঢুকেছি, ঠিক সেদিন থেকেই দেশের একজন নাগরিক হিসেবে অনেক কথাই বলার অধিকার হারিয়েছি।

এদেশের একজন অতি সাধারণ নাগরিক হিসেবে সমসাময়িক কোন বিষয়ে তাই কিছু বলার জন্য নৈতিক আর মানসিকভাবে ব্যাপক আগ্রহ থাকলেও, জনগণের চাকর হিসেবে অবস্থানগত মর্যাদা আর পেশাগত বাধ্যবাধকতার কারণে তা আর সম্ভব হয় না।

আফসোস নিয়ে হয়তো এভাবেই মনের ভিতরটা কুড়ে কুড়ে শেষ হবে।


প্রসঙ্গত, নিরাপদ মত প্রকাশ হচ্ছে গণতন্ত্র সুসংহতকরণের অন্যতম মাইলফলক।রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন সংবিধানের ব্যাখ্যা ধরে যে শব্দগুলো পাওয়া গেল অর্থাৎ বাক, ভাব, চিন্তা এবং বিবেক; তা সামগ্রিকভাবে একজন মানুষের মতরুপে প্রকাশিত হয়। সুতরাং মত প্রকাশের স্বাধীনতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অধিকার