বাংলাদেশের এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ জনে। প্রতিনিয়ত এই সংখ্যাটা বাড়ছে। বিশেষ করে বিদেশ থেকে আসা প্রবাসীদের যাদেরকে কোয়ারেন্টাইন এ রাখা হচ্ছে তাদের মধ্যে থেকে কারণে তাদের শরীরে উপস্থিতি পাওয়া যাচ্ছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের। ইতিমধ্যে ইতালি ফেরত কয়েকজনকে করেন টাইমে রাখা হয়েছিল সন্দেহ মূলক ভাবে তাদের মধ্য থেকেই একজনের করোনা পজিটিভ হয়। এমন পরিস্থিতিতে নজরদারি অবশ্যই বাড়ানো উচিত বিদেশ ফেরত দের দিকে

আরো পড়ুন

Error: No articles to display




নোভেল করোনাভাইরাসের জেরে গোটা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার। প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বুধবার এক জরুরি বৈঠকে কলেজ বন্ধের এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ খান আবুল কালাম আজাদ।

ঢামেক অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, কলেজে যারা ছাত্র এমবিবিএস-এ অধ্যয়ন করছে তাদের জন্য ৩১ মার্চ পর্যন্ত কলেজ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া কলেজের সব অফিস খোলা থাকবে। তবে যারা চিকিৎসায় নিয়োজিত তাদের জন্য খোলা।

এর আগে বুধবার সকালে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানদের সঙ্গে ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন এক জরুরি বৈঠকে বসেন। দীর্ঘ দেড় ঘণ্টা বৈঠকে করোনা ভাইরাস নিয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠক শেষে জানানো হয়, ঢামেক হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের ৪ চিকিৎসককে রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে।


এশিয়ার বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও কোন ভাইরাসের প্রকোপ আসতে চলেছে।দেরিতে হলেও বাংলাদেশে করোনাভাইরাস আসার পর থেকেই দ্রুত হারে বেড়ে চলেছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। যদিও দেশের মধ্যে থাকা কারো শরীরে এ ভাইরাস পাওয়া যায়নি যারাই বিদেশ থেকে এসেছেন তাদের শরীর এই কেবল এই ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে। সরকারের তরফ থেকে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত বিভিন্ন নির্দেশমালা দেয়া হলেও অনেকাংশে সেগুলো মানা হচ্ছে না। প্রবাসীদের কে বিদেশ থেকে ফেরার পর হোম কোয়ারেন্টাইন এ থাকতে বলা হলেও অনেকে তা মানছে না

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

Error: No articles to display