বর্তমানে বাংলাদেশের টক অফ দা টাউন হচ্ছে কচুরিপানা ইস্যু।সম্প্রতি পরিকল্পনামন্ত্রীর এক বক্তব্যে কচুরিপানা জনগণকে খাওয়ানোর বিষয়টি স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায় আর সেখান থেকেই ঘটে বিপত্তি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে সবখানেই ব্যাপক আলোড়ন ওঠে এই কচুরিপানা ইস্যুকে কেন্দ্র করে। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম গুলোতে কচুরিপানা কিভাবে খাওয়া যায় এবং তা রান্নার উপকরণ সহ বিভিন্ন প্রকার খবর প্রচার করতে শুরু করে এমনকি সম্প্রতি একটা ভিডিওতে এক যুবকের কচুরিপানা চিবিয়ে খাওয়ার দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়





কচুরিপানা খাওয়া যাবে কি যাবে না এনিয়ে বিতর্কের মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কচুরিপানা খাওয়ার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওতে একজন যুবককে কচুরিপনা খেতে দেখা যাচ্ছে। যা নিয়ে আবার নানা মন্তব্য করছেন নেটিজেনরা।

তবে এবার কচুরিপানা খাওয়া নিয়ে নিজের ফেসবুট অ্যাকাউন্টে স্ট্যাটাস দিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন। পাঠকদের সুবিধার্থে তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো...

’জনগণ কচুরিপানা খাবে না, মন্ত্রীরা খাওয়ায়েই ছাড়বে।

তারা হয়তো ভুলে গেছে, দেশভেদে খাবারের ভিন্নতা পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকে। বাঙালিরা মাছ ভাত, ডাল, সবজি খেয়ে অভ্যস্ত। কিভাবে গবেষণা করে এইসব খাবারের উৎপাদন বাড়ানোর কথা বলবে, তা না তারা কচুরিপানা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

কচুরিপানার উত্তম ব্যবহার যে এই দেশে হয়, তারা হয়তো জানে না। নদী, খাল বিলে পাটের যে জাগ দেয়া হয়, সেটার জন্য কচুরিপানা লাগে। বরং অনেকসময় পাট জাগ দেয়ার জন্য যে পরিমাণ কচুরিপানা লাগে, তা কৃষকরা খুঁজে পায় না। আবার আজকাল কচুরিপানা উপর ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ হচ্ছে।

আপনারা কচুরিপানা খাওয়ার গবেষণার জন্য যে টাকা ব্যয় করবেন, সেটা ধান, গম, সবজি, মাছ, চাল, সবজির পিছনে ব্যয় করুন। এগুলো আমাদের কমন খাদ্য। বাঙালিরা এখন পেটে ভাত দিয়ে বেঁচে থাকতে চায়। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি উন্নত হলে, তখন অকাজের জিনিসের পিছনে গবেষণা কইরেন। আগে জনগণকে বাঁচান, এরপর বিলাসিতা.....’






বর্তমানে বাংলাদেশের আলোচিত বিষয় গুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে পরিকল্পনামন্ত্রীর একটি বক্তব্য। সম্প্রতি তিনি কৃষি কর্মকর্তাদের একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে জনগণকে কচুরিপানা খাওয়ার জন্য বলেছিলেন। মূলত তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় এ খবরটি ব্যাপকভাবে বিস্তার লাভ করে। তার বক্তব্যে অনেকটাই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারন মানুষরা। তার বক্তব্যে তিনি বলেছেন গরু যদি কচুরিপানা খেতে পারে তাহলে সাধারণ জনগণ কেন খেতে পারবে না

News Page Below Ad

আরো পড়ুন

পাপের সদর দপ্তর ২০৫, সবকিছু বৈধ সেখানে

29 September, 2020 | Hits:158

স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত এবং অপ্রীতিকর ঘটনার শিকার হয়েছেন এক গৃহবধূ তরুণী সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবা...

স্যোশাল মিডিয়ায় এবার স্বামী-স্ত্রীর অভিনব প্রতারনার পর্দা ফাস হল

29 September, 2020 | Hits:199

প্রতারণার এখন নতুন কৌশল নিয়েছে প্রতারকরা সময়ের সাথে সাথে তারা তাদের কৌশল পাল্টায় খুব সুকৌশলে বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া...

আলোচিত মামলার রায় নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া জানালেন আইনমন্ত্রী

30 September, 2020 | Hits:149

বহুল আলোচিত সেই রিফাত এর ঘটনা মামলার রায় দেয়া হলো আজ। এই মামলায় যিনি এক নম্বর আসামি ছিলেন অর্থাৎ সাব্বির আহমেদ ওরফে ন...

দক্ষিণ সিটির কবরস্থানগুলো লাশ নিয়ে চলে রমরমা বাণিজ্য

28 September, 2020 | Hits:225

মানুষের জীবনের শেষ সম্বল বলতে সাড়ে তিন হাত জায়গা যেটি মানুষের শেষ মন্তব্য সেখানেও চলছে রমরমা বাণিজ্য। ঢাকা দক্ষিণ সিটি...

হঠাৎ নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি

28 September, 2020 | Hits:145

এবার নারায়ণগঞ্জ ফৌজদারী কার্যবিধি জারি করা হয়েছে এসময়কোন প্রকার সন্দেহজনক ঘোরাফেরা নিষিদ্ধ এবং কোন প্রকার সমাবেশ মিছ...

এরশাদ বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে ঘোষণা করে সবচেয়ে খারাপ কাজ করেছেন : আ.লীগ নেতা

28 September, 2020 | Hits:239

বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম নিয়ে এবার প্রশ্ন তুললেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান এবং তিনি...

মন্ত্রীরা জনগণকে কচুরিপানা খাওয়ায়েই ছাড়বে : রাশেদ
Logo
Print

শিক্ষা

 

বর্তমানে বাংলাদেশের টক অফ দা টাউন হচ্ছে কচুরিপানা ইস্যু।সম্প্রতি পরিকল্পনামন্ত্রীর এক বক্তব্যে কচুরিপানা জনগণকে খাওয়ানোর বিষয়টি স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায় আর সেখান থেকেই ঘটে বিপত্তি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে সবখানেই ব্যাপক আলোড়ন ওঠে এই কচুরিপানা ইস্যুকে কেন্দ্র করে। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম গুলোতে কচুরিপানা কিভাবে খাওয়া যায় এবং তা রান্নার উপকরণ সহ বিভিন্ন প্রকার খবর প্রচার করতে শুরু করে এমনকি সম্প্রতি একটা ভিডিওতে এক যুবকের কচুরিপানা চিবিয়ে খাওয়ার দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়





কচুরিপানা খাওয়া যাবে কি যাবে না এনিয়ে বিতর্কের মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কচুরিপানা খাওয়ার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওতে একজন যুবককে কচুরিপনা খেতে দেখা যাচ্ছে। যা নিয়ে আবার নানা মন্তব্য করছেন নেটিজেনরা।

তবে এবার কচুরিপানা খাওয়া নিয়ে নিজের ফেসবুট অ্যাকাউন্টে স্ট্যাটাস দিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন। পাঠকদের সুবিধার্থে তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো...

’জনগণ কচুরিপানা খাবে না, মন্ত্রীরা খাওয়ায়েই ছাড়বে।

তারা হয়তো ভুলে গেছে, দেশভেদে খাবারের ভিন্নতা পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকে। বাঙালিরা মাছ ভাত, ডাল, সবজি খেয়ে অভ্যস্ত। কিভাবে গবেষণা করে এইসব খাবারের উৎপাদন বাড়ানোর কথা বলবে, তা না তারা কচুরিপানা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

কচুরিপানার উত্তম ব্যবহার যে এই দেশে হয়, তারা হয়তো জানে না। নদী, খাল বিলে পাটের যে জাগ দেয়া হয়, সেটার জন্য কচুরিপানা লাগে। বরং অনেকসময় পাট জাগ দেয়ার জন্য যে পরিমাণ কচুরিপানা লাগে, তা কৃষকরা খুঁজে পায় না। আবার আজকাল কচুরিপানা উপর ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চাষ হচ্ছে।

আপনারা কচুরিপানা খাওয়ার গবেষণার জন্য যে টাকা ব্যয় করবেন, সেটা ধান, গম, সবজি, মাছ, চাল, সবজির পিছনে ব্যয় করুন। এগুলো আমাদের কমন খাদ্য। বাঙালিরা এখন পেটে ভাত দিয়ে বেঁচে থাকতে চায়। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি উন্নত হলে, তখন অকাজের জিনিসের পিছনে গবেষণা কইরেন। আগে জনগণকে বাঁচান, এরপর বিলাসিতা.....’






বর্তমানে বাংলাদেশের আলোচিত বিষয় গুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে পরিকল্পনামন্ত্রীর একটি বক্তব্য। সম্প্রতি তিনি কৃষি কর্মকর্তাদের একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে জনগণকে কচুরিপানা খাওয়ার জন্য বলেছিলেন। মূলত তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় এ খবরটি ব্যাপকভাবে বিস্তার লাভ করে। তার বক্তব্যে অনেকটাই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারন মানুষরা। তার বক্তব্যে তিনি বলেছেন গরু যদি কচুরিপানা খেতে পারে তাহলে সাধারণ জনগণ কেন খেতে পারবে না
Template Design © Joomla Templates | GavickPro. All rights reserved.