সাম্প্রতি সারা দেশে মাদক ও অবৈধ ক্যসিনোগুলোতে অভিযানে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনির সদস্যরা।কিছুদিন আগে রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকার ইয়ংমেনজ ক্লাবে অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাব।সেখানে ছিল বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য নগদ অর্থ এবং বিপুল জুয়ার সামগ্রী উদ্ধার করে র‍্যব। এই অভিযানের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে রাজধানীর আরো বিভিন্ন ক্লাবে অভিযান পরিচালনা অব্যহত রেখেছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনি


একসময় ছিলেন যুবলীগের পিয়ন। মাসিক বেতন ছিলো ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা। মাত্র পাঁচ হাজার থেকে শতকোটি টাকার মালিক। ব্যবধান মাত্র একদশক। কি নেই তার! অসংখ্য ফ্লাট, আস্ত বাড়ি , গাড়ি সব আছে। শুধু ঢাকাতেই বিশের উপর দোকান, গোপালগঞ্জে ফিলিং স্টেশন এমনকি বিলাসবহুল বাগানবাড়ি, সবাই আছে তার। এত সব সম্পদের মালিক, যুবলীগের একসময়ের কম্পিউটার অপারেটর, বর্তমানে দপ্তর সম্পাদক আনিসুর রহমান। তার বাড়ি গোপালগঞ্জের মোকসেদপেুরে ।


উল্লেখ্য,প্রধানমন্ত্রীর ইঙ্গিতের পর গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে বিভিন্ন ক্রীড়া ক্লাবে র‌্যাবের অভিযানে জুয়া এবং ক্যাসিনো পরিচালনায় সরকার সমর্থক ‍যুবলীগের নেতাদের সম্পৃক্তার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।এর পরেই আওয়ামিলীগের নেতাকর্মিদের অনেকের মুখোশ উন্মোচন হয়