ভালো খারাপ আর খারাপ ভালোর সংমিশ্রণে মানুষের উপর মানুষ বিশ্বাস হারিয়ে ফেলছে, জানা যায়নি, শিক্ষকের মনে কি ছিল, কি কারণে এমনটি করেছেন, তবে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে চুমু খেয়ে বিপাকে পড়েছেন শিক্ষক আব্দুল হাকিম।
নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল হাকিমকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

তৃতীয় শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীকে রোববার শারীরিক শিক্ষা শিক্ষক আব্দুল হাকিম কপালে ও গালে চুমু খায়। ছাত্রীটি বাড়িতে ফিরে তার বাবাকে বিষয়টি বলে। তিনি রোববার ফোন করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিনকে বিষয়টি জানান।

প্রধান শিক্ষক সোমবার স্কুলে গিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক স্কুলে যাননি। তবে তিনি অভিভাবক আব্দুর রহিমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাজনীন আখতারকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

শিশুটির বাবা আব্দুর রহিম এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ সোমবার বিকেলে অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুল হাকিমকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

নাটোর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ছাত্রীর বাবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে শিক্ষক আব্দুল হাকিমকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।