সাম্প্রতিক সময়ে কোন ভাইরাসের সংক্রমণ তুলনামূলকভাবে অনেকাংশে কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে ইউরোপের দেশ নিউজিল্যান্ড সেখানে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে কোন ভাইরাসের এই সময় কালকে পর্যবেক্ষণ করে রেখেছেন তারা।তাদের নিরাপত্তা এতোটাই বেশি যে সম্প্রতি দেখা গেল একটি রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়েছিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন কিন্তু সেখান থেকে তাকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে সেখানে মানুষের ভিড় বেশি ছিল বলে। তবে এরই মধ্যে নানান রকম প্রশংসনীয় উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে করোনাভাইরাস মোকাবেলা করে বিশ্ববাসীর কাছে প্রশংসিত জেসিন্ডা আরডার্ন

আরো পড়ুন

Error: No articles to display




নিউজিল্যান্ডে শতাব্দীর সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জাসিন্ডা আরডার্ন। সোমবার নিউজহাব রিড রিসার্চ- প্রকাশিত জনমত জরিপে এই তথ্য জানা গেছে। মূলত কোভিড-১৯ এর বিস্তার ঠেকাতে নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণেই এই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন জাসিন্ডা।

৮ মে থেকে ১৬ মে’র মাঝামাঝি সময়ে জনমত জরিপটি পরিচালনা করা হয়। জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৫০ ভাগের প্রতিক্রিয়া নেওয়া হয়েছে বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় বাজেট ঘোষণার পর। জরিপে জেসিন্ডার স্কোর ৫৯.৫ শতাংশ। পূর্ববর্তী জরিপের চেয়ে ২০.৮ পয়েন্ট বেশি পেয়েছেন তিনি। রিড রিসার্চ-এর জরিপ পরিচালনার ইতিহাসে এটাই সর্বোচ্চ স্কোর।

করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর নিউজিল্যান্ডে এটিই প্রথম কোনও জনমত জরিপ। এতে দেখা গেছে, জেসিন্ডার লেবার পার্টিরও জনপ্রিয়তা বেড়েছে। এর স্কোর ১৪ পয়েন্ট বেড়ে ৫৬.৫ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। নিউজিল্যান্ডের দলগুলোর জন্য এ যাবতকালের সর্বোচ্চ স্কোর এটি। অপরদিকে পার্লামেন্টের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল দ্য ন্যাশনালস-এর স্কোর ৩০.৬ শতাংশ।

দেশটির জনগণের একটা বড় অংশ বিশ্বাস করেন, তাদের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডেনের বিচক্ষণ ভূমিকার কারণেই নিউজিল্যান্ড করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পেরেছে। তাই দেশটিতে সাম্প্রতিক এক জরিপে শতাব্দীর জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

এক মাসেরও বেশি সময় ধরে নিউজিল্যান্ডে লকডাউন জারি ছিল। এপ্রিলের শেষের দিকে নিউজিল্যান্ডে লকডাউন শিথিল করে দেয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার থেকে শপিং মল, সিনেমা হল, ক্যাফে ও জিমনেসিয়ামও খুলে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ইউরোপের যেসব দেশগুলোতে প্রাণঘাতী করেনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব লক্ষ্য করা গিয়েছিল সেসব দেশগুলোতে এখনো করোনাভাইরাস বিদ্যমান কিন্তু ঐ সকল দেশের পাশে থাকা অনেক দেশগুলো বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড সম্পাদন এবং আগে থেকেই তারা বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণের ফলে তাদের দেশগুলোতে কোন ভাইরাসের সংক্রমণ তুলনামূলক অনেক কম এবং সম্প্রতিক সময়ে সেখানে আস্তে আস্তে করে সংক্রমনের সংখ্যা একেবারে শূন্যের কোঠায় নেমে আসতে শুরু করেছে এমন কয়েকটি দেশের মধ্যে অন্যতম একটি হলো নিউজিল্যান্ড



News Page Below Ad

আরো পড়ুন

Error: No articles to display